‘করোনা’ আতঙ্কে ১৭৩ টাকার মাস্কের দাম বেড়ে ১৪ হাজার টাকা!

0
62

চীনের বাইরেও ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। ফলে গত কয়েকদিনে বিশ্বজুড়ে হু হু করে বৃদ্ধি পেয়েছে ওষুধ, স্যানিটাইজার ও মাস্ক বিক্রি। ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল চীনে মাস্কের ঘাটতি দেখা দিয়েছে অনেক আগেই। এবার একই সংকটে পড়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত।

দেশটির স্থানীয় দৈনিক গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার প্রথমবারের মতো সংযুক্ত আরব আমিরাতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির খবর প্রকাশ হলে মাস্ক কেনার জন্য দুবাইসহ দেশটির বিভিন্ন শহরের ফার্মেসিগুলোতে হুমড়ি খেয়ে পড়ে মানুষ। এতে খুব অল্প সময়ের মধ্যে মাস্কের মজুত শেষ হয়ে যায়। আর এ সুযোগ কাজে লাগিয়েই মাস্কের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে দেশটির স্থানীয় অনলাইন শপিং সাইটগুলো।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, সাধারণত দেশটিতে ২০ পিসের এক প্যাকেট এন-৯৫ মাস্কের দাম ১৫০ থেকে ১৮০ দিরহাম। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৩ হাজার ৪৬০ টাকা থেকে ৪ হাজার ১৫০ টাকা। সে হিসাবে প্রতি পিস মাস্কের দাম পড়ে সাড়ে ৭ দিরহাম বা ১৭৩ টাকা। কিন্তু করোনাভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় এবং চাহিদা বাড়ায় বর্তমানে অনলাইন শপিং সাইটগুলো প্রতি পিস এন-৯৫ মাস্ক বিক্রি করছে ১৫০ থেকে ৫৯৯ দিরহাম। যার মূল্য বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৩ হাজার ৪৬০ টাকা থেকে ১৩ হাজার ৮২০ টাকা।

গাল্ফ নিউজ বলছে, একাধিক ফার্মেসিতে যোগাযোগ করা হলে জানা যায়, করোনাভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় প্রচুর মানুষ মাস্ক কিনতে আসছেন। ফলে মাস্কের সংকট দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে ভাইরাসপ্রতিরোধী উন্নতমানের এন-৯৫ মাস্কের মজুত সম্পূর্ণ শেষ হয়ে গেছে।

দুবাইয়ের অ্যাসটার ফার্মেসির এক কর্মকর্তা জানান, স্থানীয়রা প্রচুর পরিমাণে মাস্ক ও স্যানিটাইজার কিনতে ফার্মেসিতে আসছেন। গত দুই দিনে তাদের সব ধরনের মাস্কের মজুত শেষে হয়ে গেছে। এ ছাড়া স্থানীয় হাসপাতালগুলোও তাদের কর্মীদের জন্য ব্যাপক পরিমাণ মাস্ক মজুত রাখা হয়েছে।

লাইফ ফার্মেসির এক বিক্রয়কর্মী জানান, তাদের এখানে সামান্য কিছু সার্জিক্যাল মাস্ক রয়েছে। তবে এন-৯৫ মাস্ক পুরোপুরি শেষ হয়ে গেছে। কবে নতুন মাস্ক আসবে সে ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না।

এদিকে, দেশটিতে মাস্কের সংকট এতটাই প্রকট হয়েছে যে, উচ্চমূল্যে বিক্রি করার পরও অনলাইন শপিং সাইটগুলো প্রতিবারে এক বক্সের বেশি অর্ডার নিচ্ছে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here