হিলি বন্দরে থেকে ৫৭ ট্রাক বোঝাই ভারতীয় পেঁয়াজ ঢুকছে বাংলাদেশে (ভিডিও)

0
132

দিনাজপুর প্রতিনিধি: ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার আগে ২৮ সেপ্টেম্বরের পুরোনো এলসি করা ৭০টি পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাকের মধ্যে ৫৭টি ট্রাক হিলি স্থলবন্দরে প্রবেশ করেছে। বন্দর দিয়ে দেশে পেঁয়াজ প্রবেশের সাথে সাথে কমেছে পেঁয়াজের দাম। এরই মধ্যে প্রতিকেজি পেঁয়াজ হিলি বন্দরে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫২ টাকায়। চারদিন থেকে ওপারে প্যাকিংয়ে আটকে থাকায় গরমে অনেক পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে গেছে। পেঁয়াজের গাড়ি থেকে পানি পড়ছে। অধিকাংশ নষ্ট পেঁয়াজ নিয়ে আমদানিকারকরা এখন পড়েছেন বিপাকে।

নানা জটিলতা শেষে গতকাল শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার পর থেকে পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাকগুলো বন্দরে প্রবেশ করতে শুরু করে। বন্দর কর্তৃপক্ষ বলছেন, ৫৭টি ট্রাকে ৯৪৬ মেট্রিকটন পেঁয়াজ হিলি স্থলবন্দর দিয়ে দেশে এসেছে।

হিলির খুচরা বিক্রেতা আহম্মেদ আলী বলেন, দুর্গাপূজার ছুটিতে হিলি বন্দর ১১ অক্টোবর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এই বন্ধের মাঝে আবারও আমদানিকারক ও পাইকারি ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ মজুত করলে খুচরা বাজারে দাম আবারও অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেতে পারে। তাই তারা বাজার মনিটরিং টিম হিলিতে রাখার দাবি জানান।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ভারত সরকার পেয়াঁজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার আগেই দুর্গাপূজার বন্ধের সময় দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক রাখতে নির্ধারিত মূল্যে প্রচুর পরিমাণ এলসি করা হয়েছে। ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার পর সেই পেঁয়াজগুলো ভারতের অভ্যন্তরে আটকে যায়।

নানা জল্পনা-কল্পনা শেষে আজ শুক্রবার সেই পেঁয়াজগুলো বন্দরে প্রবেশ করতে শুরু করেছে। যা বন্দরে প্রবেশ করলে পেঁয়াজের বাজার যেমন স্বাভাবিক হবে তেমনি আমরাও ক্ষতির হাত থেকে বাঁচবো।

আমদানিকারক বাবলু রহমান জানান, আমদানিকৃত পেঁয়াজ নিয়ে বিপাকে পড়তে হচ্ছে তাদেরকে। গরমে অনেক গাড়ি দিয়ে পেঁয়াজ পচার পানি ঝড়ছে। বন্দরে যে সকল পেঁয়াজ এসেছে তার মধ্যে অধিকাংশ পেঁয়াজ পচে নষ্ট হয়ে গেছে। পোর্ট থেকে পেঁয়াজ নিজ গুদামে নিয়ে গিয়ে বাছাই করে তার পর বিক্রি করা হবে। এক সাথে বেশি পরিমাণে পেঁয়াজ দেশে প্রবেশ করায় দাম কমে যাওয়ায় অনেক আমদানিকারককেই লোকসান গুণতে হবে।

ডেইলি২৪লাইভ/ঢাকা/এসএস

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here