দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী

0
22

জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এখানে দল মত আত্মীয়-স্বজন বলে কিছু নেই। তিনি আরো বলেছেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান চলছে, চলবে। দুর্নীতিবাজ যেই হোক না কেন, যে দলেরই হোক না কেন, কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। কেননা আমার হারাবার কিছু নেই।

বুধবার (২ অক্টোবর) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁও থেকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর বাণিজ্যিক সেবা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। বক্তব্য রাখেন তথ্যমন্ত্রী ড হাছান মাহমুদ, টেলিভিশন ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অঞ্জন চৌধুরী ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস। এসময় প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক এলাহী চৌধুরী শিক্ষামন্ত্রী ডাক্তার দীপু মনি সহ মন্ত্রিপরিষদের সদস্যবৃন্দ, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের পদস্থ সরকারি কর্মকর্তা বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর বাণিজ্যিক সেবা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী বলেন এদের টেলিভিশন সম্প্রচারের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা যোগ হলো ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সম্প্রচারের ক্ষেত্রে অনেক বাধা দূর হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সব সময়ের লক্ষ্য মানুষের কল্যাণ করা। সেটা শুধু রাজধানীর মানুষ না। অর্থনৈতিক ভাবে গ্রামের মানুষও যাতে সক্ষমতা অর্জন করে সেটার আমরা সুযোগ করে দিচ্ছি।

এ সময় বাংলাদেশের দ্বিতীয় পারমাণবিক কেন্দ্র দেশের দক্ষিণ অঞ্চলের কোন চর অঞ্চলে হবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেটার খোঁজ আমি নিচ্ছি। বাংলাদেশ দ্বিতীয় স্যাটেলাইটের কাজ শুরু করেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দ্বিতীয় স্যাটেলাইটের কাজ শুরু করেছি আমরা এটা আরো বড় আকারে করতে চাই ‌। দেশে বর্তমানে ২২ হাজার মেগাওয়াটের উপর বিদ্যুৎ রয়েছে বলেও এ সময় জানান তিনি। অনুষ্ঠানে নিজ বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী গণমাধ্যমকে মিথ্যা অপপ্রচার যাতে না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার জন্য সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রথম স্যাটেলাইট ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১’-এর এই বাণিজ্যিক সেবা উদ্বোধনের ফলে এখন থেকে দেশের সব বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এই সেবা পূর্ণাঙ্গভাবে ব্যবহার করে তাদের অনুষ্ঠান সম্প্রচার করবে। এর মধ্য দিয়ে দেশের সম্প্রচার শিল্প এক নয়া অধ্যায়ে প্রবেশ করল। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ ব্যবহারে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় হবে। স্থানীয় টিভি চ্যানেলগুলো ভাড়া হিসেবে ব্যবহার করবে।

এর আগে গত ১৯ মে বিসিএসসিএল ছয়টি বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষর করে। এই টিভি চ্যানেলগুলো হচ্ছে, সময় টিভি, যমুনা টিভি, দীপ্ত টিভি, বিজয় বাংলা, বাংলা টিভি ও মাই টিভি। পাশাপাশি রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন টিভি চ্যানেল বিটিভির চারটি চ্যানেল বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ ব্যবহার করে এরই মধ্যে অনুষ্ঠান সম্প্রচার শুরু করেছে।

দেশের সব টিভি চ্যানেল তাদের অনুষ্ঠান সম্প্রচারের জন্য বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর ৫টি ট্রান্সপন্ডারের সামর্থ্য প্রয়োজন হবে। এছাড়াও বেক্সিমকো গ্রুপের কোম্পানি আকাশ ছয়টি ট্র্যান্সপন্ডার ভাড়া নিয়ে ডাইরেক্ট টু হোম বা ডিটিএইচ স্যাটেলাইট টিভিতে অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে।

ফ্রান্সের প্রতিষ্ঠান থ্যালেস অ্যালেনিয়া স্পেস গত নভেম্বর মাসে বিএস-১ এর নিয়ন্ত্রণ কর্তৃত্ব বিসিএসসিএল’র কাছে হস্তান্তর করে। ২০১৮ সালের ১২ মে ফ্লোরিডা থেকে এটি মহাকাশে উৎক্ষেপণ করা হয়। বিএস-১ এর প্রথম পরীক্ষামূলক সম্প্রচার করা হয়, ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন (সাফ) চ্যাম্পিয়ন-২০১৮ অনুষ্ঠান সফল সম্প্রচারের মাধ্যমে।

পাশাপাশি বিসিএসসিএল প্রতিবেশি চারটি দেশসহ ছয়টি দেশে বিএস-১ এর বাজারজাত ও বিক্রয়ের জন্য আন্তর্জাতিক কনসালটেন্সি ফার্ম থাইকন দুই বছরের জন্য ভাড়া করা হয়। থাই ফার্মটি বতর্মানে বিশ্বের ২০টি দেশে কাজ করছে। ১১৯.১ পূর্ব জিওস্টেশনারি স্লটে অবস্থিত বিএস-১ সার্ক দেশসমূহ এবং ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, মিয়ানমার, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তান, উজবেকিস্তান, তুর্কিস্তান এবং কাজাখস্তানের কিছু অংশ কাভার করবে। ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, ভারত, শ্রীলঙ্কা, নেপাল এবং ভুটান বেশি কভারেজ পাওয়ায় এই ছয়টি দেশ প্রাথমিকভাবে ব্যবসার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

ডেইলি২৪লাইভ/ঢাকা/এসএস

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here